BN/Prabhupada 0324 - হতিহাস মানে প্রথম শ্রেনীর মানুষের গতিবিধী বোঝা

From Vanipedia
Jump to: navigation, search
Go-previous.png Previous Page - Video 0323
Next Page - Video 0325 Go-next.png

হতিহাস মানে প্রথম শ্রেনীর মানুষের গতিবিধী বোঝা
- Prabhupāda 0324


Lecture on SB 6.1.20 -- Chicago, July 4, 1975

আর এইটা কুরুক্ষেত্রের ধর্মক্ষেত্র। শুধুতাই নয়, যুদ্ধ সংঘটিত হওয়ার কারণে এবং কৃষ্ণ যুদ্ধক্ষেত্রে ছিলেন, তাই এটি ধর্ম-ক্ষেত্র নামে পরিচিত। কখনও কখনও এটি এই ভাবে ব্যাখ্যা করা হয়। কিন্তু আসলে কুরুক্ষেত্র অনেক অনেক আগে থেকেই ধর্মক্ষেত্র ছিল। বেদ অনুসারে, কুরুক্ষেত্রে ধর্মান আচরেত; "যদি কেউ কর্মকান্ড কাজ করতে চায়, তবে তাকে কুরুক্ষেত্রে যেতে হবে।" এবং এটা ভারতের মধ্যে একটি পৃথক ব্যবস্থা এখনও আছে, যদি দুটি পক্ষের মধ্যে কিছু মতানৈক্য বা বিরোধতা থাকে, তাই তারা এখনও মন্দিরে যায় - মন্দির একটি ধর্ম ক্ষেত্র - তাই অর্চা বিগ্রহের সামনে কেউ মিথ্যা বলতে পারে না। এটা এখনও চালু আছে। এমনকি যদি নিচু চিন্তার ব্যক্তিও হয়, তবুও, যদি তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন যে "আপনি এই মিথ্যা বলছেন। এখন আপনি বিগ্রহের সামনে বলুন," তিনি সংকোচ করবেন, "না।" এটি এখনও ভারতে রয়েছে আপনি বিগ্রহের সামনে মিথ্যা বলতে পারবেন না। এটা একটা অপরাধ। এটা ভাববেন না যে বিগ্রহ একটি মার্বেল মূর্তি। না। স্বয়ং ভগবান। চৈতন্য মহাপ্রভুর মত, যখনই তিনি জগন্নাথ বিগ্রহ দেখেন তিনি তৎক্ষণাৎ অচেতন হয়ে পড়েন। "ওহ, এখানে আমার ভগবান।" আমাদের মত না: "ওহ, এখানে একটি মূর্তি আছে।" না। এটি প্রশংসার একটি প্রশ্ন। তাই আপনি কি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বা না করেন, অর্চা বিগ্রহ হল পরম পুরুষ ভগবান স্বংয়। আমাদেরকে সর্বদা মনে রাখতে হবে। তাই আমাদেরকে বিগ্রহের সামনে খুব সর্তক থাকতে হবে, কোন অপরাধ যেন না হয়। তাদের সেবা করার জন্য, তাদেরকে প্রসাদম অর্পন করতে, তাদের পোষাক পরিবর্তনের জন্য, আমাদের সর্বদা মনে রাখা উচিত, "ব্যক্তিগতভাবে শ্রী কৃষ্ণ এখানে আছেন।" তিনি ব্যাক্তিগতভাবে আছেন, কিন্তু আমাদের জ্ঞানের অভাবের কারণে, আমরা এইটা বুঝতে পারি না। তাইজন্য শাস্ত্রের সমস্ত কিছু আমাদের পালন করতে হবে। একে ব্রাহ্মণ্য সংস্কৃতি বলা হয়। এই কৃষ্ণ ভাবনামৃত আন্দোলন মানে ব্রাহ্মণ্য সংস্কৃতি - প্রথম শ্রেণীর পুরুষের সাংস্কৃতিক প্রদর্শনী, প্রথম শ্রেণীর পুরুষ। ব্রাহ্মণকে মানব সমাজের প্রথম শ্রেণীর ব্যক্তি হিসেবে গণ্য করা উচিত। এইজন্য কৃষ্ণ বলেছেন, চতুর-বর্নম ময়া সৃষ্টম গুন-কর্ম-বিভাগস (ভ.গী.৪.১৩) ইতিহাস, ইতিহাস মানে প্রথম শ্রেণীর মানুষের কার্যকলাপ বোঝা। এটা ইতিহাস। তারা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা উত্থাপন করে। অতএব, এখানে একটি উদাহরণ হল যে উদাহরন্তি ইমাম ইতিহাসম পুরাতনম। কারণ এটি একটি প্রথম শ্রেণীর ঘটনা ... অন্যথায়, যদি আপনি পুরো ইতিহাস রেকর্ড করেন, তাহলে কোথায়, কে পড়বে, এবং কে এটার প্রশংসা করবে, এবং আপনি কোথায় রাখবেন? অনেক কিছু ঘটছে প্রতিদিন। অতএব, বৈদিক ব্যবস্থায় ইতিহাসে কেবল উল্লেখযোগ্য ঘটনাই রেকর্ড করা হয়। অতএব এটিকে পুরাণ বলা হয়। পুরাণের অর্থ প্রাচীন ইতিহাস। পুরাতনম। পুরাতনম মানে খুব খুব পুরানো। এটি রেকর্ড করা হয়। সুতরাং এটি শ্রীমদ-ভাগবতমের ঐতিহাসিক ঘটনাগুলির পুরনো ইতিহাসের একটি সংগ্রহ। ইতিহাসম পুরানানম সারং সারং সমোদ্ধৃত্য। সারং মানে সারবস্তু। সমস্ত নোংরা রেকর্ড করা প্রয়োজন নেই। না। সারং সারং, শুধুমাত্র গুরুত্বপূর্ণ, সারাংশ, যা রেকর্ড করা আবশ্যক। একে ভারতীয় ইতিহাস বলা হয়। মহাভারত ... মহা মানে মহান ভারত। গ্রেট ভারত, সেখানে অনেক ঘটনা ছিল, কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ, সেখানে আছে। সব যুদ্ধ রেকর্ড করা উচিত নয়।