BN/Prabhupada 0081 - সূর্য লোকে শরীর অগ্নি দিয়ে তৈরি

From Vanipedia
Jump to: navigation, search
Go-previous.png Previous Page - Video 0080
Next Page - Video 0082 Go-next.png

সূর্য লোকে শরীর অগ্নি দিয়ে তৈরী
- Prabhupāda 0081


Lecture on BG 2.13 -- New York, March 11, 1966

তাই এখানে, এখানে বলা হয়েছে যে ধীর, ধীর।

দেহিনোস্মিন যথা দেহে
কৌমারং যৌবনং জড়া
তথা দেহং তরো প্রাপ্তির
ধীরস্তত্র ন মুহ্যতে
(ভ.গী.২.১৩)

দেহিনঃ। দেহিনঃ এর অর্থ হল যিনি এই জড় শরীর গ্রহণ করেছেন।" অস্মিন, অস্মিন কথার অর্থ হল এই জগতে অথবা এই জীবনে। যথা যেমন দেহে। দেহের অর্থ এই শরীরে। কারন দেহিন অর্থ যিনি এই শরীর ধারন করেছে, আর দেহে এই শরীরে। সুতরাং আমি এই শরীরের মধ্যে বসে আছি, কিন্তু আমি এই শরীর নই। যেমন তুমি এই জামা এবং কোটের মধ্যে আছো, তেমনি আমি এই শরীরের মধ্যে আছি। এই স্থুল শরীর এবং সুক্ষ্ম শরীর। স্থুল শরীর, মাটি, জল, অগ্নি, বায়ু আর আকাশ দিয়ে তৈরী। এই স্থুল শরীর, এটাই আমাদের জড় শরীর। এখন এই জগতে, এই লোকে, মাটি হচ্ছে মূল। যেখানেই ,এই শরীর আছে ,জড় শরীর এই পাঁচ মূল তত্ত্ব দিয়ে তৈরী; মাটি, জল, অগ্নি, বায়ু এবং আকাশ দ্বারা। এই পাঁচটি মূল তত্ত্ব আছে। যেমন এই বিল্ডিং। এই সমগ্র বাড়িটি তৈরী পৃথিবী, জল এবং অগ্নি দিয়ে। আপনি কিছু মাটি গ্রহণ করেছেন, এবং তারপর আপনি ইট তৈরি করেছেন এবং আগুনে পুড়িয়াছেন, মাটির সঙ্গে জল মিশিয়ে, আপনি ইটের আকার তৈরী করেছেন এবং তারপর আপনি আগুনে পুড়িয়েছেন, এবং যখন এটি শক্ত হয়ে গেছে , তারপর ওটাকে দিয়ে আপনি এই বাড়ী বানিয়েছেন। সুতরাং এটি কেবল পৃথিবী, জল আর অগ্নির রূপ। ব্যাস। এইরকমই, আমাদের শরীর এইভাবেই তৈরী হয়েছে মাটি, জল, অগ্নি, বায়ু এবং আকাশ দ্বারা। বায়ু...বাতাস চলতেই থাকে, শ্বাস। তুমি জান। বাতাস সবসময়ই আছে। এই, এই ত্বক হচ্ছে পৃথিবী, এবং আমাদের পেটে তাপ আছে। তাপ ছাড়া আপনি কিছু হজম করতে পারবেন না, বুঝেছ? যখনই তাপ কম হয়, তখন আপনার হজম শক্তি খারাপ হয়ে যায়। তাই অনেক কিছু আছে, এটাই ব্যবস্থা। এখন, এই লোকে আমরা এই শরীর পেয়েছি, এখানে পৃথিবী হচ্ছে মূখ্য। তেমনি অন্য লোকে, অন্য গ্রহে যেখানে জল মূখ্য। কোথাও আগুন খুব মূখ্য। সূর্য লোকে, সেখানে দেহ আছে ...সেখানেও জীব আছে, কিন্তু সেখানকার শরীর অগ্নি দিয়ে তৈরী। তারা আগুনের মধ্যে বেঁচে থাকতে পারে। তারা আগুনের মধ্যে বেঁচে থাকতে পারে। এইরকমই, বরুণলোকে, শুক্র গ্রহে, এত লোক আছে, প্রত্যেক লোকে তাদের বিভিন্ন ধরনের শরীর আছে। যেমন এখানে আপনি দেখতে পারেন জলের মধ্যে, জলের প্রাণী, তাদের কাছে একটি ভিন্ন ধরনের শরীর আছে। এত বছর ধরে তারা জলের প্রানী হয়ে রয়েছে, তারা জলের ভিতরে থাকে, তারা সেখানে অনেক সুখ অনুভব করে। কিন্তু যেই মুহূর্তে আপনি একে ডাঙ্গায় টেনে আনবেন, এটি মারা যাবে। একইভাবে, আপনি ডাঙ্গায় আরামদায়ক, কিন্তু যেই মুহূর্তে আপনাকে জ্লের মধ্যে রাখা হয়, আপনি মারা যাবেন। কারণ আপনার দেহ, অন্যভাবে নির্মিত হয়েছে, তার শারীরিক নির্মাণ ভিন্ন, পাখির দেহ... পাখি, বড় পাখি, ও উড়ে যেতে পারে, কিন্তু এটি ভগবানের তৈরি উড়ন্ত যন্ত্র। কিন্তু আপনাদের মানুষ দ্বারা বানানো যন্ত্র, এটি পরে গিয়ে ধ্বংস হচ্ছে, বুঝেছ? কারণ এটা কৃত্রিম।

সুতরাং এটাই ব্যবস্থাপনা। প্রতিটি জীব কাছে একটি বিশেষ ধরনের শরীর আছে। দেহিনোস্মিন যথা দেহে(ভ.গী. ২.১৩)এবং এই দেহের স্বভাব কি? এখন, এখানে বিষয়টি ব্যাখ্যা করা হচ্ছে, আমরা কিভাবে আমাদের দেহ পরিবর্তন করি? কিভাবে...কিন্তু, এটি আমাদের জন্য একটি কঠিন সমস্যার বিষয় কারণ আমরা ব্যস্ত। দেহাত্ম বুদ্ধির বিচারে। এখন, আধ্যাত্মিক জ্ঞানের সর্ব প্রথম শেখানো হয় যে "আমি এই দেহ নই।" যতক্ষন না কেউ দৃঢ়ভাবে বুঝতে পারে যে "আমি এই দেহ নই," তিনি আধ্যাত্মিক মার্গে আগে অগ্রসর হতে পারবে না। সুতরাং ভগবত-গীতার প্রথম শিক্ষা এইভাবে বুঝতে হয়। তাই এখানে, যে দেহিনোস্মিন। এখন, দেহের অর্থ হচ্ছে আত্মা। আত্মা, দেহির অর্থ হচ্ছে আত্মা, যিনি এই দেহকে স্বীকার করেছেন, ভৌতিক দেহ, তাকে বলে হয় দেহি। সুতরাং অস্মিন তিনি সেখানে আছে্ন। তিনি সেখানে আছে্ন, কিন্তু তার শরীর পরিবর্তন করা হচ্ছে।